সোমবার ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ দুপুর ১:২১

স্লো কম্পিউটারকে ফাস্ট করুন

Slow Computer fast

নুতন Computer কিনেছেন, কেনার সময় যে স্পিড ছিল তার অর্ধেকও নেই এখন? মানে আপনার PC Slow হয়ে গেছে। প্রোগ্রাম খুলতে দেরী করে, ক্লিক করার পর দীর্ঘক্ষণ ঝিমাতে থাকে, একসাথে একাধিক প্রোগ্রাম খুলে কাজ করা যায় না, যা আগে যেত, প্রায় সময় হ্যাং করে ইত্যাদি সমস্যায় ভোগেন প্রায় ইউজার। কম্পিউটারের এ আচরণ নিশ্চয় কারো ভাল লাগে না। কাউকে বললে RAM বাড়ানোর পরামর্শই দেন শুধু। আসুন কিছু কাজ করে দেখি।

Computer এর Speed বাড়ানোর জন্য যে কথাটি সর্বপ্রথম আসে তার নাম হলো RAM এবং Processor এবং তার সাথে সামঞ্জপূর্ণ মাদারবোর্ড। অর্থাৎRAM বাড়িয়েএবং Processor আপডেট করে স্পীড বাড়ানো যায়। RAM হয়তো কিছুটা বাড়ানো যায় কিন্তু Processor বাড়াতে গেলে আসে Motherboard এর কথা। কারণ পুরাতন Motherboard নতুন Processor কে সাপোর্ট নাও করতে পারে।তাই পুরাতন মডেলের পিসি যাতে RAM বা Processor আপডেট করার সুযোগ নেই তাতে নিচের কাজগুলো করা যেতে পারে। এতে Slow Computer বা Slow PC কিছুটা হলেও স্পীড পাবে।

Step 1:

১. Run এ গিয় লেখুন prefetch তারপর OK দিন। যা আসবে সব ডিলিট করুন। একইভাবে temp, %temp%, recent লিখে এন্টার দিন এবং সব ডিলিট করুন।
২. Search এগিয়েলেখুন  *.tmp এবং সার্চ দিন। যা পাবেন সব ডিলিট করেদিন। এভাবে  *bac,*.bak, *.bck, *.bk!, *.bk$ গুলোও সার্চ দিয়ে Delete করুন। কাজটি উইন্ডোজ এবং নতুন প্রোগ্রাম ইনস্টল করার পর সাধারণত একবার করলেই হয়। অবশ্য অনেক সময় উক্ত ফাইলগুলো গুরুত্বপূর্ণ কাজে লাগে। তবে তা এডভান্স ব্যাবহার কারীদের জন্য। RAM যদি বেশি হয় তাহলে একাজটি করে তেমন পার্থক্য বুঝা যাবেনা।
৩. সবড্রাইভে Disk Cleanup চালান।
৪. সব Drive এ Check Disk চালান।
৫. Defragment চালানপ্রতি Drive এ।
৬. Regisrtry Clean করুন সপ্তাহে অন্তত একবার।
৭. CDROM এ কোন CD/DVD থাকলে বের করে ফেলুন।
Step 2:
১। Windows এর Automatic Update অপশন Enable থাকলে Disable করে দিন।
২। কোন ড্রাইভার বা সফটওয়ারেরর Automatic Update হচ্ছে কি না চেক করে দেখুন। Automatic Update অপশন Enable থাকলে Disable করে দিন।
বিশেষ করে নেট কানেকশন পাওয়ার পর পিসি স্লো হলে এ অপশনগুলোকে সন্দেহ করতে পারেন।

৩। পিসি যদি Virus, Mal-ware, Spyware ইত্যাদি Malicious Tools বা ক্ষতিকারক টুল দ্বারা আক্রান্ত হয় তাহলে এগুলো পিসিতে ইউজারের অজান্তে বা গোপনে কাজ করে। ইউজার যতই সচেতন হোক তা বুঝতে পারে না। যতক্ষণ পিসি চালু থাকে এ কাজ চলতে থাকে এবং এতে পিসি স্লো হয়ে পড়ে। তাই পিসিতে শক্তিশালী Antivirus, Firewall ব্যবহার করতে হবে। এগুলো নিয়মিত Update করতে হবে এবং মাঝে মাঝে পিসি স্ক্যান করে দেখতে হবে।তাই আপনার পিসি স্ক্যান করে দেখুন। প্রয়োজনে নতুনভাবে Windows Setup করুন। তারপর অন্য কোন সফটওয়ার ইনস্টল করার আগে নতুন ডাউনলোড করা একটি Antivirus ইন্সটল করুন এবং AntivirusUpdate করে Full Scan দিন। তারপর ড্রাইভার সহ অন্যান্য সফটওয়ার ইনস্টল করুন।

৪। অপ্রয়োজনীয় সফটওয়ার Uninstall করে ফেলুন। C Drive বা Windows ড্রাইভে কমপক্ষে অর্ধেক জায়গা খালি রাখুন। প্রতিটি ড্রাইভে কমপক্ষে ১৫% জায়গা খালি রাখুন। অর্থাৎ কোন ড্রাইভ যেন ডাটায় Full হয়ে না যায়।

Step 3:
১। আপনার এন্টিভাইরাস অটোমেটিক স্ক্যান বা সিডিউল স্ক্যান হচ্ছে কি না চেক করে দেখুন। যদি এরকম হয় তাহলে সিডিউল স্ক্যান পুরোটা শেষ হতে দিন বা বন্ধ করে দিন। সিডিউল স্ক্যান একবারে পুরোটা হতে না পারলে পিসি চালু হওয়ার সাথে সাথে পুণরায় শুরু থেকে হতে পারে। এতে পিসি স্লো হয়ে পড়ে।সিডিউল স্ক্যান সাধারণত সপ্তাহে একবার হয়। যদিও বিভিন্ন এন্টিভাইরাসে বিভিন্ন রকম সেটিংস থাকে বা ইউজারেরা নিজের মত করে সেটিংস করে নেই। প্রয়োজনে এন্টিভাইরাসটা UnInstall করে দেখুন।
২। Motherboard এর ড্রাইভারগুলো সঠিকভাবে ইন্সটল না থাকলেও পিসি স্লো হতে পারে। বিশেষ করে Graphics আর Chip Set Driver। এ জন্য Device Manager চেক করে দেখুন।
৩। Start Menu থেকে Run এ গিয়ে (Windows+R) এ গিয়ে msconfig লিখে এন্টার চাপুন। ওখান থেকে Non Microsoft Service গুলো বন্ধ করে দিন। অপরিচিত সার্ভিস পেলে Google এ সার্চ দিয়ে জেনে নিন। তারপর Start-up থেকে অপ্রয়োজনীয় Shortcut গুলো বন্ধ করে দিন।
৪। অনেক সময় ভাইরাস, সফটওয়ার Install/Uninstall বা অন্যান্য কারণে উইন্ডোজের কিছু ফাইল করাপ্ট হয়। এতে হয়ত স্বাভাবিক কাজকর্ম করা যায় তবে কম্পিউটারের স্পিড কমে যায়। এ জন্য sfc কমান্ড চালান। কাজ না হলে Windows Repair বা নতুন করে উইন্ডোজ দিন। এতে ও আপনার কম্পিউটারে স্পিড আসবে।
Step 4:

১। পুরনো পার্টিশন ভেঙে হার্ডডিস্কটিকে নতুন করে পার্টিশন তৈরি করুন। তবে কাজটি করার আগে প্রয়োজনীয় ডাটা বেকআপ নিতে ভুলবেননা।

২। সবশেষে আপনার হার্ডডিস্কে Bad Sector চেক করুন এবং প্রয়োজনে হার্ডডিস্ক পরিবর্তন করুন।
(লেখাটি টেকটিউন্সে kamrul cox-এর পোস্ট থেকে নেওয়া হয়েছে।)
© Alright Reserved 2020, The Morning Telegraph